1. [email protected] : মোহাম্মদ গোলাম রাব্বি : Mohammed Gulam Rabbi
  2. [email protected] : Md. Mehedi Hasan : Md. Mehedi Hasan
মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০১:৫৮ পূর্বাহ্ন

মেঘনা নদীতে পুলিশ-জেলে সংঘর্ষ – ১৫ পুলিশ আহত – আটক ৫

চাঁদপুর টেলিভিশন ডেস্কঃ
  • আপডেট : রবিবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৭৭ দেখেছে
চাঁদপুরের মেঘনা নদীতে পুলিশ-জেলে সংঘর্ষ - এএসপিসহ ১৫ পুলিশ আহত - আটক ৫
চাঁদপুরের মেঘনা নদীতে পুলিশ-জেলে সংঘর্ষ - এএসপিসহ ১৫ পুলিশ আহত - আটক ৫

চাঁদপুরের মেঘনা নদীতে জেলেদের হামলায় ১৫ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। চাঁদপুরের মেঘনা নদীতে মা ইলিশ রক্ষা অভিযানে আসা ঢাকা নৌ-পুলিশ হেড কোয়াটারের শত সদস্যের একটি টিম ২৪ অক্টোবর শনিবার বিকেল থেকে চাঁদপুর ও শরীয়তপুরের জাজিরা এলাকায় জাহাজ, স্প্রিডবোট ও হেলিকপ্টার নিয়ে অভিযান চালায়। ২৫ অক্টোবর রোববার সকাল ১০টায় চাঁদপুর থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে যাওয়ার সময় জেলেদের দেখে ধাওয়া করে। এ সময় ৭জেলেকে আটক করে। জেলেরা সংঘবদ্ধ হয়ে পুলিশের উপর সকাল সাড়ে ১০টায় হামলা চালায়। এ হামলায় নৌ-পুলিশের সদর দপ্তরের সহকারী দু’পুলিশ সুপারসহ ১৫ জন নৌ-পুলিশ সদস্য গুরুতর আহত হয়। এদেরকে চাঁদপুর ২৫০ শয্যা সরকারি জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ২৫ অক্টোবর রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় চাঁদপুর সদর উপজেলার রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নের মেঘনা নদীর ল²ীরচর এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

আহত নৌ-পুলিশরা হলেন : ঢাকা নৌ-পুলিশ সদর দপ্তরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হেড কোয়াটার ফরিদা পারভীন (৩৬), অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হেলাল উদ্দীন, ইন্সপেক্টর মুজাহিদুল ইসলাম, এস আই ইলিয়াস (৩০), নায়েক ইকবাল হোসেন, নায়েক শাহ জালাল, প্রসেনজিৎ (২৪), কনস্টেবল আল মামুন (২৮), ফেরদৌস শেখ (২৬), নীলয় দেব (২৫), আলামিন (২৫), কাউসার (৩০), মোনায়েম (২৬)। এছাড়াও আরো বেশ কিছু নৌ-পুলিশ কমবেশি আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

আহত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফরিদা পারভিন জানান, শনিবার বিকেলে ঢাকা নৌ-পুলিশ হেডকোয়ার্টার থেকে নৌ-পুলিশ সুপার সফিকুল ইসলাম, ফরিদ আহমেদ, মিনা মাহমুদা’র নেতৃত্বে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফরিদা পারভিনসহ শতাধিক পুলিশ সদস্যের একটি টিম নিয়ে মা ইলিশ রক্ষা অভিযানে নামেন। অভিযানের টিমটি ওই দিন বিকেলে মুন্সিগঞ্জ থেকে শুরু করে শরীয়তপুর জেলার জাজিরা এলাকার কাইজ্জার চর অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় তারা ২ শতাধিক জেলে নৌকা নদীতে ফুটো করে ডুবিয়ে দেয়। বিপুল পরিমাণ কারেন্ট জাল জব্দ করে নৌকার মধ্যে রেখেই আগুনে পুড়িয়ে দেন। বিপুল পরিমাণ মা ইলিশ জব্দ করে। ঢাকার উদ্দেশ্যে যাওয়ার পথে চাঁদপুরের মেঘনা নদীর ল²ীচর স্থানে আসলে ওই এলাকায় জেলেরা নদীতে নামতে দেখতে পেয়ে তাদের ধাওয়া করে ৫ জন জেলেকে আটক করে। এ সময় জেলেরা সংঘবদ্ধ হয়ে পুলিশের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। জেলেরা ইট-পাটকেল ও বিভিন্ন লাঠি সোটা নিয়ে পুলিশ সদস্যদের উপর হামলা চালালে তারা মারাত্মক ভাবে আঘাত প্রাপ্ত হয়। অভিযানে থাকা অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা আহতদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য চাঁদপুর ২৫০ শয্যা সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে। পুলিশ আত্মরক্ষার্থে প্রায় অর্ধশত রাউন্ড শর্টগান ও টিয়ার সেলের ফাঁকা গুলি ছুরে।

আহত ইন্সপেক্টর মুজাহিদ জানান, শনিবার দিবাগত রাতে ঢাকা হেডকোয়ার্টার থেকে প্রায় শতাধিক পুলিশ সদস্য ও প্রশাসনিক কর্মকর্তা নিয়ে শরীয়তপুর জেলায় অভিযানে আসেন। সেখান থেকে ফিরে যাওয়ার পথে চাঁদপুরের মেঘনা নদীর ল²ীচর স্থানে গেলে তারা দেখেন যে, মেঘনা নদীতে অনেক জেলেরা মা ইলিশ নিধন করছে। এ সময় তারা বিভিন্ন স্পিডবোট এবং ইঞ্জিনচালিত নৌকা ও জেলেদেরকে আটক করে। পরবর্তীতে ওই এলাকার সমস্ত জেলেরা একজোট হয়ে তাদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। আটক ৫ জেলে হলো : আমিরাবাদ এলাকার নবীর হোসেন (৩০), মাহফুজ (১৮), শাহজালাল (২০), খলিল (২৫), রুবেল (২০), কাবিল হোসেন (১৮) ও ওমর ফারুক (১৮)। গুরুতর আহত এ.এস.পি হেলাল উদ্দিন, ফরিদা পারভীন, নায়েক ইকবাল হোসেন, ইন্সপেক্টর মুজাহিদুল ইসলাম, নায়েক শাহজালালকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

ফেসবুক মন্তব্য

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি.
© All rights reserved 2020 ChandpurTelevision.Com