1. [email protected] : মোহাম্মদ গোলাম রাব্বি : Mohammed Gulam Rabbi
  2. [email protected] : Md. Mehedi Hasan : Md. Mehedi Hasan
মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১০:০০ অপরাহ্ন

শাহনাজ হত্যাকাণ্ডে ২ হত্যাকারী আটক

চাঁদপুর টেলিভিশন ডেস্কঃ
  • আপডেট : শুক্রবার, ২ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৪৭ দেখেছে
শাহনাজ হত্যাকাণ্ডে ২ হত্যাকারী আটক
শাহনাজ হত্যাকাণ্ডে সুধারাম থানা পুলিশের ২৪ ঘন্টার মধ্যে ২ হত্যাকারী আটক

নোয়াখালী সদর উপজেলার নোয়ান্ন ইউনিয়নের করমুল্লাপুর গ্রাম থেকে বস্তাবন্দি গলাকাটা নারীর পরিচয় এবং ঘটনার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দু’ হত্যাকারীকে আটক করেছে পুলিশ।

১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকালে বেগমগঞ্জ উপজেলার কেন্দুরবাগ এলাকা থেকে অভিযুক্ত আসামিদের গ্রেফতার করে পুলিশ। নিহত শাহানাজ (১৮) চাঁদপুর শহরের পুরানবাজার কবরস্থান এলাকার বাসিন্দার। তার পিতা শাহ আলম চাঁদপুর হোটেল এÐ রেস্টুরেন্টে বাবুর্চির চাকুরী করেন। গত বৃহস্পতিবার সুধারাম থানা পুলিশ নিহত শাহনাজের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে। এরপর তার মরদেহ পুরানবাজার কবরস্থানে দাফন করা হয়।

শাহনাজ হত্যার গ্রেফতারকৃতরা হলো : বেগমগঞ্জ উপজেলার কেন্দুরবাগ গ্রামের বাগারি বাড়ির মৃত জামাল উদ্দিনের ছেলে ইয়াছিন আরাফাত (২৬) ও একই এলাকার চৌকিদার বাড়ির মো. আব্দুল মালেকের ছেলে মো. রাসেল (২৪)।

এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত দু’ আসামীকে বিচারিক আদালতে হাজির করলে, গ্রেফতারকৃত আসামীরা নোয়াখালী চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে খুনের দ্বায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে। পরে আদালত তাদেরকে জেলহাজতে পাঠায়।

সুধারাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নবীর হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, নিহত শাহানাজের সাথে মোবাইল ফোনে ইয়াছিন আরাফাতের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। প্রেমের সম্পর্কের জের ধরে এর আগে কয়েকবার শাহানাজ চাঁদপুর থেকে নোয়াখালীতে আসে। মুখে সুপারগøু দিয়ে আটকিয়ে দেয়া হয়। মুখমÐল থেঁতলে দেয়া হয়। গত ২৯ সেপ্টেম্বর নোয়াখালী আসে শাহানাজ। এক পর্যায়ে শাহানাজ ইয়াছিনকে বিয়ে করতে চাপ প্রয়োগ করে। বিয়ে করার কথা নিয়ে দু’জনের মধ্যে কথা কাটাকাটির ঘটনা ঘটে। কথা কাটাকাটির জের ধরে ইয়াছিন ও তার সহযোগী রাসেল কৌশলে শাহানাজকে নোয়ান্ন ইউনিয়নের খন্দকার সমিলের পিছনের একটি ৩তলা পরিত্যক্ত বিল্ডিংয়ে নিয়ে হাত-পা বেঁধে গলা কেটে হত্যা করে। পরে মরদেহ বস্তায় ঢুকিয়ে নোয়ান্ন ইউনিয়নের করমুল্লাপুর গ্রামের একটি ডোবার মধ্যে ফেলে দিয়ে আসে।

ওসি নবীর হোসেন আরো জানান, পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে হত্যাকাÐের ২৪ ঘন্টার মধ্যে মোবাইল ট্রাকিংয়ের মাধ্যমে মাস্টার মাইন্ডসহ দু’ আসামিকে গ্রেফতার করে রহস্য উদঘাটন করে।

ফেসবুক মন্তব্য

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

বিজ্ঞাপন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি.
© All rights reserved 2020 ChandpurTelevision.Com