1. [email protected] : মোহাম্মদ গোলাম রাব্বি : Mohammed Gulam Rabbi
  2. [email protected] : Md. Mehedi Hasan : Md. Mehedi Hasan
মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৩২ অপরাহ্ন

চাঁদপুরের শাহনাজের গলাকাটা বস্তাবন্দি লাশ

চাঁদপুর টেলিভিশন ডেস্কঃ
  • আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর, ২০২০
  • ৩৭৬ দেখেছে
নায়াখালির ডোবায় মিললো চাঁদপুরের শাহনাজের গলাকাটা বস্তাবন্দি লাশ
নায়াখালির ডোবায় মিললো চাঁদপুরের শাহনাজের গলাকাটা বস্তাবন্দি লাশ

নোয়াখালীর সদর উপজেলায় ডোবা থেকে চাঁদপুর শহরের পুরাণবাজার কবরস্থান রোডের শাহনাজ আক্তার (১৮) বছর বয়সী এক যুবতীর গলাকাটা বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার করেছে নোয়াখালি পুলিশ। ৩ বোন ১ ভাইয়ের মধ্যে শাহনাজ ছিল সবার বড়। তার পিতার নাম শাহআলম। সে চাঁদপুর শহরের প্রাণকেন্দ্র কালিবাড়ি মোড় এলাকার চাঁদপুর হোটেল এÐ রেস্টুরেন্টের প্রধান বাবুর্চি হিসেবে কাজ করে।

শাহআলম জানায়, তার মেয়ে শাহনাজ একটু মানসিক ভারসাম্যহীন। ৩দিন আগে সে পুরাণবাজারের বাড়ি থেকে আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যায়। সেখানে গিয়ে সে নিখোঁজ হয়। সুধারাম থানা পুলিশ বুধবার শাহনাজের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করে। রাতে পুলিশ শাহনাজের মোবাইল উদ্ধার করে। সেই সিম থেকে আমাদের নাম্বারে কল করে শাহনাজের মৃত্যুর বিষয়ে জানায়। রাতেই আমরা সুধারাম থানায় গিয়ে শাহনাজের লাশ শনাক্ত করি।

সুধারাম থানার অফিসার ইনচার্জ নবীর হোসেন জানান, গত ৩০ সেপ্টেম্বর বুধবার দুপুর ১২টায় নোয়াখালি সদর উপজেলার ৩নং নোয়ান্নই ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের করমুল্যাহপুর গ্রামের একটি ডোবা থেকে পুলিশ বস্তা বন্দি অবস্থায় শাহানাজের মরদেহ উদ্ধার করে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে। তবে তাৎক্ষণিক ওই যুবতীর নাম ঠিকানা জানা যায়নি। পুলিশ বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। বৃহস্পতিবার সকালে সুধারাম থানা পুলিশ শাহনাজের লাশ তার পিতা শাহ আলমের কাছে হস্তান্তর করেছে।

ধারনা করা হচ্ছে, শাহনাজকে ধর্ষনের পর দুর্বৃৃত্তরা গলাকেটে হত্যা করে বস্তাবন্দি করে ডোবায় ফেলে দিয়েছে। এ ব্যাপারে সুধারাম থানায় হত্যা মামলা করা হয়েছে।

ফেসবুক মন্তব্য

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

বিজ্ঞাপন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি.
© All rights reserved 2020 ChandpurTelevision.Com